সর্বশেষ সংবাদ

রাজধানীর ঢাকা ১৫ আসনে অপ্রতিদন্ধী গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু

নিউজ ২১ ডেস্ক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যতোই এগিয়ে আসছে আসন ভিত্তিক পরিসংখ্যান ততোই সামনে আসছে। নির্বাচনের বাকী এক বছরের বেশী সময় থাকলেও এলাকা ভিত্তিক জরিপ হচ্ছে প্রতি মাসেই। গোয়েন্দা সংস্থাগুলো বিভিন্ন আসনের পরিস্থিতি তুলে ধরছে। তার সূত্র ধরে সংবাদও প্রকাশিত হচ্ছে। যদিও গোয়েন্দা সংস্থার তথ্য ফাঁস হওয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে।
বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদন এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে রাজধানী ঢাকা’র অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ আসন ঢাকা ১৫ তে এবার সবার থেকে এগিয়ে স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রিয় যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু।
যদিও ঢাকা ১৫ আসনে বর্তমান এমপি কামাল আহমেদ মজুমদার। তিনি এবারও এই আসন থেকেই মনোনয়ন চাইবেন। কিন্তু, বয়সের কারণে তার নেই তেমন কোন রাজনৈতিক কর্মকান্ড। নেতা-কর্মীদের সাথে খারাপ ব্যবহারের অভিযোগও তার বিরুদ্ধে বহু পুরোনো। এছাড়া স্থানীয় কেউ কোন সমস্যা নিয়ে তার কাছে গেলেও দেখা পাওয়া খুব কঠিন। তিনি মনিপুর স্কুল এবং মোহনা টিভি নিয়ে ব্যস্ত থাকতে ভালবাসেন। তিনি বসেনও মোহনা টিভিতে। তার বিরুদ্ধে রয়েছে মনিপুর স্কুলসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বহু অভিযোগ। এই সব কারণে তার মনোনয়ন না পাওয়ার সম্ভবনার কথাই উঠে এসেছে সকল মাধ্যমে।
অন্য দিকে ঢাকা ১৫ আসনে মনোনয়ন চান যুবলীগের মহানগর উত্তরের সভাপতি মঈনুল হোসেন খান নিখিল। যুবলীগ মহানগর উত্তরের সভাপতি হিসেবে পরিচিতি থাকলেও এলাকায় নেতাকর্মীদের সাথে নেই কোন সংযোগ। শুধুমাত্র যুবলীগের একটা অংশের সাথে রয়েছে তার যোগাযোগ। কিন্তু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ বা আওয়ামীলীগের উপর তার কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। এমন কি যুবলীগের অর্ধেক অংশের উপরই তার নিয়ন্ত্রণ নেই। বরং, তারা তার বিরোধী। তাছাড়া স্থানীয় জনগণের সাথেও তার যোগাযোগ প্রায় শূণ্য পর্যায়ের। বেশীরভাগ সাধারণ মানুষ সরাসরি তাকে দেখেনি বলে জানিয়েছে। এই প্রেক্ষিতে তার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভবনাও তাই নেই বললেই চলে।
এদিকে গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু’র এক্ষেত্রে সব দিক থেকেই জয়ের সম্ভবনা উজ্জ্বল। দল মত নির্বেশেষে সকলে তাকে সংসদ সদস্য রূপে দেখতে চায় বলে জানা গেছে। নেতা-কর্মীদের সাথে তার রয়েছে আত্নার সম্পর্ক। তার বিরুদ্ধে নেই কোন দূর্ণিতির অভিযোগ। যা তার অন্য প্রতিদন্ধীদের সবার সম্পর্কেই কম বেশী রয়েছে। স্থানীয় জনগনের সাথেও রয়েছে তার গভীর সম্পর্ক। গত ৩৫ বছর ধরে একই এলাকায় রাজনীতি করার কারণে ঢাকা ১৫ আসনের এমন কোন বাড়ী নেই যেখানে তিনি এক বেলা খাননি বা তাকে চিনে না। আওয়ামীলীগ এবং সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সাথেও রয়েছে তার গভীর সম্পর্ক।
এই বিষয়ে মহনগর উত্তর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, “মিরপুরের মাটি ও মানুষের নেতা গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু। নেতা হয়তো অনেক আছে, কিন্তু, মিরপুরের জনপ্রিয় নেতা হিসেবে গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু অপ্রতিদন্ধী। মিরপুরের মাঝে যদি ঢাকা ১৫ আসনের কথা বলতে হয়, সেখানে জনপ্রিয়তায় সাচ্চু ভাই অপ্রতিদন্ধী।”
ঢাকা ১৫ আসনের অন্তর্গত কাফরুল থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহিন আহমেদ জানান, “এটা আমার অপেন চেলেঞ্জ, ব্যালেটের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা যাচাই করা হোক, ঢাকা ১৫ আসনে সাচ্চু ভাইয়ের ৫ ভাগের এক ভাগ ভোট পাবে এমন কোন নেতা নেই।”
শ্রমিক লীগের মহানগর উত্তরের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন তালুকদার জানান, “ঢাকা ১৫ আসনের মানুষ সুখে-দুঃখে যাকে পাশে পায় তার নাম গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু। রাত ৩টার সময়ও ঢাকা ১৫ আসনের কেউ বিপদে পড়লে যার কথা মনে করে, তার নাম গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু। এই আসনে তার কোন বিকল্প নেই। আমরা সবাই তার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ।”
শ্রমিক লীগের কাফরুল থানার সাধারণ সম্পাদক মোঃ জালাল জানান, ” আমার সহজ কথা, আমাদের শ্রমিকরা যে কেউ যে কোন সমস্যার মুখোমুখি হলে আমাদের আশ্রয় সাচ্চু ভাই। তার কোন বিকল্প আমাদের কাছে নেই। তাকেই ঢাকা ১৫ আসনের সংসদ সদস্য রূপে দেখতে চাই।”
এই বিষয়ে স্বেচ্ছাসেবকলীগের কাফরুল থানার সাংগঠনিক সম্পাদক আরশেদ আলী জানান, ” গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু কেন্দ্রিয় স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হওয়াতে বলছি না,বরং আপনি নিজে ঢাকা ১৫ আসনের যে কোন জায়গায় গিয়ে জনমত জরীপ করুণ। সবাই এক বাক্যে বলবে ঢাকা ১৫ আসনে সংসদ সদস্য রূপে গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চুকেই দেখতে চায়।”
ঢাকা ১৫ আসনের অন্তর্গত ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম জানান, “ঢাকা ১৫ আসনে জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে যে কোন মানদন্ডে সবার চেয়ে এগিয়ে আছে একটি নাম। সেই নামটি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু।”
একই বিষয়ে ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী জানান, ” দলমত নির্বিশেষে সকলে যাকে ভালবেসে নাম দিয়েছে মিরপুরের মাটি ও মানুষের নেতা, তার নাম গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু। যে কোন বিচারে তার আসে পাশে আসার যোগ্যতা অন্য কার আছে বলে আমি মনে করি না।”
মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইসহাক মিয়া বলেন, ” গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু শুধু একটি নাম নয়, বরং একটি প্রতিষ্ঠান। সাধারণ মানুষের ভালবাসায় তিনি ধন্য। অবশ্যই ঢাকা ১৫ আসনে তিনি অদ্বিতীয়।”
ঢাকা ১৫ আসনে কাকে সংসদ সদস্য রূপে দেখতে চান, জানতে চাইলে ঢাকা ১৫ আসনের সাধারণ ভোটার ইসতিয়াক আহমেদ জানান, “সাচ্চু ভাই নির্বাচন করলে ব্যক্তি হিসেবে তাকেই ভোট দিব। তিনি যদি নির্বাচন না করেন, তবে অন্যদল থেকে কে কে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে তা দেখে ভোট দিব।”

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*